সীমানা ছাড়িয়ে আসার প্রেক্ষাপট

সত্যি বলতে কি, নিজের একটা ফেসবুক পেজ আমারও আছে। তবে সে পেজের অনেক সীমাবদ্ধতা। তার মাধ্যমে নিজের মতন করে গল্পগুলো সবার সাথে ভাগ করে নিতে পারছিলাম না। সব সময়ে প্রিয়জনের সঙ্গে গল্প করতে বসাও চট করে হয়ে ওঠে না আজকাল। আড্ডাবাজ মানুষের পক্ষে এ এক সমস্যা, তাই শেষপর্যন্ত আসতেই হল  আমার মত মধ্যবিত্তের সাধপূরণের  গল্প বলতে।

আমি এক পথিক। মফস্বল আর মহানগরীর দোলাচলে কেটেছে দীর্ঘ সময়। তাতে স্টেশনের বেঞ্চে বসে খাওয়া অসাধারণ ঘুগনি থেকে পাঁচতলা হোটেলের বেকড বিনস- জীবন সবই গ্রহণ করেছে! নেতারহাটে আদিবাসী যুবকের সুর আমি খুঁজে পেয়েছি সুদূর আলেকজান্দ্রিয়ায় বেজে ওঠা আহমেদের “রাবাব”-এ। মানুষ ও প্রকৃতির বিচিত্র কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করাই আমার ভাললাগা ও ভালবাসা। সেসব কথা না পারি ফেসবুকে বলতে, না কোন প্রকাশক উৎসাহী হবেন। আবার আমিও পারব না- না বলে থাকতে।

সে জন্যই এই ওয়েবসাইটের আগমন। এর মাধ্যমে আমি ধরার চেষ্টা করেছি বিভিন্ন অভিজ্ঞতা, চিন্তা, মতামত, সিনেমা বা খাবারের গল্প, তোলা ছবি, মুদ্রিত লেখা, কবিতা আরও কিছু আবেগ। এখন দেখতে পাচ্ছি এতে ধরা দিয়েছে বদলে যাওয়া সময়, আর হয়ত কিছু নিজের বদলও। এক কথায় আমার সব ভাললাগা ও ভালবাসা।  আপনাদের ভাল-খারাপ যাই লাগুক, মতামত জানাতে পারেন নীচের ফর্মে। অন্য মাধ্যমেও যোগাযোগের হদিশ দেওয়া আছে।

ও হ্যাঁ, আমি ভাল কফি বানাই। এবার আপনার আর আমার আড্ডা জমার মাঝে ব্যবধান কিন্ত, শুধু এক পা।

 

যেতে যেতে

যেতে যেতে

দেশে বিদেশে

দেশে বিদেশে

নাগরিক দিনলিপি

নাগরিক দিনলিপি

খাবারের সুলুকসন্ধান

খাবারের সুলুকসন্ধান


আজকের দিন

২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

#আমার_নিজস্ব_ওয়েবসাইট -- http://debanjanbagchi.com

সুপ্রভাত। কথাটা হল এবার, কেন ওয়েবসাইট?

চাকরি সামলে অবসর সময়ে টুকটাক কিছু করি অনেক সময়। এই হয়ত খিচিক করে ছবি তুললাম, এই হয়ত পদ্য বা গদ্য লেখার চেষ্টা করলাম, আবার ওই হয়ত কিছু নিজের গলায় বলার চেষ্টা করলাম। সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনারা সস্নেহে তা অনেক ক্ষেত্রেই বরদাস্ত করেন। প্রশ্রয় দেন। আপনাদের শুভেচ্ছায় ও বরাভয়ে এদিক ওদিক কিছু নিজের কাজকর্ম পাঠাতে থাকলাম। বেশ কিছু দেখলাম মানুষজন ছেপেও দিল। এভাবেই দিব্যি চলছিল, মুস্কিল হল নিজের জিনিসপত্র ফেসবুকে খুঁজতে গিয়ে। সে দেখি নিজের পুরোন পোস্ট ফেসবুক থেকে বের করা অনেকটা বাড়িতে নিজের পুরোনো খেলনা খুঁজে বের করার মতন। অতঃপর ওয়েবসাইট।

এবার বলি কেন আজকে?

আজকের দিনটি আমার কাছে স্পেশাল। যেকোন বড় পুজোর মতন বিশেষ- মায়ের জন্মদিন। অন্যবছর যেভাবেই হোক মায়ের কাছেই থাকি এই দিনে, এবার নানান কারনে হল না। যাই হোক, ক্যালেন্ডারে এই দিনটি আমার ভীষন প্রিয়। তাই আজকের দিনটাকে বেছে নিলাম আপনাদের সঙ্গে এই পোস্ট শেয়ার করার জন্য।

মত দেবেন, প্রতি পেজে আপনাদের কমেন্ট লেখার ব্যবস্থাও করেছি। সুস্থ থাকবেন সপরিবারে, দিন ভাল হোক।


Summary
Photo ofদেবাঞ্জন বাগচী
Name
দেবাঞ্জন বাগচী
Website
Job Title
চাকুরীজীবী
Address
ডায়ামন্ড সিটি নর্থ,ব্লক-৩০,ফ্লাট-২এফ,
দমদম, ৭০০০৫৫