কেউ পথে নেই

কেউ পথে নেই

কেউ পথে নেই 1024 682 সীমানা ছাড়িয়ে

কেউ পথে নেই

দেবাঞ্জন বাগচী

দুরন্ত দামাল বিকেলের ঘামে ভেজা শরীর
গোধূলির আলোয় শুকানো হয়না অনেকদিন।
স্বপ্নে দেখা হাফপ্যান্ট পরা মুখগুলো
অনেক স্বপ্নহীন রাত পেরিয়ে পথঘাটে কবেই যেন
অচেনা হয়ে এসেছে।
এ সবই হয়ত বা নস্টালজিয়া, অথবা
ছায়া দীর্ঘ হচ্ছে আমার চেয়ে!

যে উপেক্ষিত প্রতিবেশী চলে গেল অগোচরে
তা আমারই নির্মম উদাসীনতায়,
যেন আরো নিষ্ঠুর।
যে প্রিয়জন একদিন সকালে আর ঘরে ফিরল না
তাকে তো কয়েক বছরে আগেই হারিয়েছি মন থেকে।
যে পোষ্য তলিয়ে গেছে অতল গহ্বরে,
মনের কিছুটা সে নিয়ে গেল, চিরতরে।
অথবা আমার সৌরভটুকু হারিয়ে যাবে বলেই, হয়ত তারা সযত্নে, নিয়ে সরে গেছে।

পোশাকের আভিজাত্যে নিজের দৈন্যতা ঢেকে
সূর্যাস্ত খুঁজি শহরের পথে পথে।
কফিনে সাজানো ফুলের তোড়া,
কত বিচিত্র ফুলে বর্ণময়, একটিও মৌমাছি নেই।
গোটা দিন দাঁড়িয়ে থাকে মেট্রো স্টেশনের দরজায়,
দিন আছে, গোধূলি নেই।
ঘুমাতে যাই সকালে বেঁচে ওঠার আকাঙ্ক্ষায়,
প্রতিদিন উঠে খুঁজে পাই নিজের মৃতদেহ।
নারীর উন্মোচিত বুকের গভীর থেকে উন্মাদনার পরিবর্তে,
গাঢ় কুয়াশা ভেদ করে,
আমার নিরাসক্ত হাতে উঠে আসে আরো একমুঠো শূন্যতা।
মহামারীর অনুশাসনে নিয়মনিষ্ঠ পৃথিবীতে
ভালোবাসা নেই।

ঘুমপাড়ানি গানের স্মৃতির চেয়ে দীর্ঘ,
এক পথে হাঁটতে হাঁটতে মনে পড়ে
চলে যাওয়া পোষ্য, ফিরে যাওয়া প্রতিবেশীর কথা।
সামনে পথ, আর পাশেই আমার ছায়া
বাকিরা, নিভৃতবাসে।
আমার পদক্ষেপে নরম হচ্ছে পথের কালো বিটুমিন
আজ, কেউ পথে নেই।

 

Summary
Article Name
কেউ পথে নেই
Author

Leave a Reply

Solve : *
28 ⁄ 14 =