পবিত্র অগোচরে

পবিত্র অগোচরে

পবিত্র অগোচরে 150 150 সীমানা ছাড়িয়ে

পবিত্র অগোচরে

*****************
নেমে গিয়েছিলাম যাত্রীহীন স্টেশনে।
আর কেউ না থাকলেও পিছু নিয়েছিল
কিছুটা নিঃসঙ্গতা আর, পথ ভোলার মোহ।

সহযাত্রীদের গন্তব্য মেলে না, সফরের এমনই নিয়ম
যেটুকু মেলে, তাও আমাদেরই রংমিলান্তি খেলা।
সকলেই পৌঁছে গিয়েছিল নিজের স্টেশনে,
সবার অগোচরে লাল মাটির পথে
আমিই শুধু ফিরে গিয়েছিলাম সেই পুকুরপাড়ে। যেখানে, সন্ধেবেলায়
থেমে আছে সময়।

সন্ধের অন্ধকার ঘনিয়ে আসার পর প্রথমে
জলে ভেসে উঠেছিল ওপারের কিছু বাবলা
আর ডুমুরগাছের ছায়া।
তারপর একে একে হারানো
হাঁড়িতে কাঁকড়া ধরার দুপুর,
গোল্লাছুটের বিকেল,
হ্যামলিনের বাঁশিওয়ালা
কিছু প্রিয়জনের মুখ…

একসময় ঘিরে ধরেছিল
কিছু না লেখা উপন্যাসের মুখ আর,
না পড়া গল্পের অসংখ্য চরিত্র।
উল্কাপাতের প্রহরে আর পবিত্র অগোচরে,
মধ্যরাত্রিকে তাই উপহার দিয়ে এসেছি
কয়েক ফোঁটা অশ্রুজল।

© দেবাঞ্জন বাগচী।

Leave a Reply

Solve : *
27 − 2 =