বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস , আলোকচিত্র দিবস সত্যিই এক আলোকিত বিশ্ব

বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস , আলোকচিত্র দিবস সত্যিই এক আলোকিত বিশ্ব

বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস , আলোকচিত্র দিবস সত্যিই এক আলোকিত বিশ্ব 1015 1024 সীমানা ছাড়িয়ে

 

বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস বিশ্ব আলোকচিত্র দিবস

বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস, বিশ্ব আলোকচিত্র দিবস সত্যিই এক আলোকিত বিশ্ব ।অনেক কথার থেকে ফটোগ্রাফি অনেক বেশি প্রভাব ফেলে। মনে পড়ছে আয়লান কুর্দির কথা অথবা আফগান গার্ল? সিরিয়ার রিফিউজি সমস্যা বা আফগানিস্তানের হাজার হাজার বছর অপরাজেয় থাকার কাহিনী? এক ফ্রেমে কি অসাধারণভাবেই না মূর্ত হয়েছিল দুটি ছবিতে!

ফটোগ্রাফি কিছু মানুষের কাছে বাঁচার আরেক নাম। তাঁদের কেউ শখে ছবি তোলেন আবার কেউ কেউ এটাকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন। গ্রাম থেকে মেট্রোপলিটন সর্বত্রই অসংখ্য মানুষ ডিজিটাল বা মোবাইল ক্যামেরার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলছেন অনেক না বলা কথা। এবং বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার জোয়ারে ফটোগ্রাফির অনেকটাই চাহিদা তৈরি হয়েছে।

তবে চিকিৎসাবিদ্যাকে যেমন এগিয়ে নিয়ে গেছেন হাজার বছর ধরে হাতুড়েরা, এও তেমন। এই সাবজেক্টকেও জনপ্রিয় করে রেখেছেন শখের “খিচিক” বিশারদেরা।

কোন দিনে পালিত হয় বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস?

ফটোগ্রাফি দিবস নেহাৎ স্রোতে গা ভাসিয়ে দিয়ে “অমুক ডে তমুক ডে”র মতন আনকোরা উদযাপন নয়।

বরং এর উদযাপন হচ্ছে ১৮৩৯ সাল থেকেই। আগস্ট মাসের ১৯ তারিখে আলোকচিত্রের দিন হিসেবে উদযাপন করে আসছে বিশ্ব। প্রথম ড্যাগুইররিয়ো টাইপ(অনেকে বলেন দাগেরোটাইপ) ফটোগ্রাফি উন্মোচনের সেই দিনটিকে স্মরণ করার উদ্দেশ্যে প্রতি বছরের এই দিন বিশ্ব আলোকচিত্র দিবস হিসেবে উদযাপিত হয়ে থাকে।

এছাড়াও শুরু থেকে আজ পর্যন্ত ফটোগ্রাফির অগ্রযাত্রায় যে সকল মানুষ নিরলস কাজ করে গেছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই দিনটি পালন করা হয়।

বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস কোথায় পালন হয়?

ভারতসহ সারা বিশ্বে ১৭০ টির ও বেশি দেশে এই দিবসটি পালন করা হয়। এ বছরের কথা আলাদা।

আলোকচিত্র দিবসের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

১৯৩৯ সালের জানুয়ারির ৯ তারিখে “ফ্রেঞ্চ একাডেমি অফ সায়েন্স” আলোকচিত্রের এক অভূতপূর্ব পদ্ধতি ঘোষণা করে। এই উপায়ের নাম হলো ড‍্যাগুইররিও টাইপ । নানা ধরনের পরীক্ষার শেষে এই প্রক্রিয়া কে কয়েক মাস পর ১৯সে আগস্ট জনসাধারণের সামনে আনা হয় ।

১৮৩৭ সালে নাইসফোর নিপেক ও লুইস ড্যাগুইর এই “ড‍্যাগুইররিও টাইপ ফটোগ্রাফি” আবিস্কার করেন। ড্যাগুইর-এর নাম অনুসারেই ছবি তোলার এই উপায়ের নাম দেয়া হয় ড্যাগুইররিয়ো টাইপ ফটোগ্রাফি।

তখন থেকেই ফটোগ্রাফিতে এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা হয়। ১৮৩৯ সালের ১৯ আগস্ট সবার প্রথম ফরাসি সরকার ১৯ আগস্টকে বিশ্ব ফটোগ্রাফি দিবস হিসেবে ঘোষণা।

 ফটোগ্রাফি দিবস নিয়ে আমার Trivia

এই পদ্ধতিতে ফটোগ্রাফি এখনও জনপ্রিয়। এই পদ্ধতিতে অদ্ভুত সুন্দর ও প্রাণবন্ত ছবি তোলা যায় ও সেগুলি হয় ভীষন দীর্ঘস্থায়ী।

লিংক দেখতে পারেন – https://www.mentalfloss.com/article/16677/daguerreotype-qa

প্রতিবেদকের  বিশেষ সংযোজন –

এক অখ্যাত মুখচোরা আলোকচিত্রীর গল্প।

ভিভিয়ান ডরোথি মাইয়ার (ফেব্রুয়ারি ১৯২৬ – এপ্রিল, ২০০৯) একজন আমেরিকান ফটোগ্রাফার ছিলেন। তাঁর ফটোগ্রাফির ভান্ডার তাঁর মৃত্যুর পরে আবিষ্কার করা হয়েছিল। এবং স্বীকৃত হয়েছিল। এখন তাঁর কাজ বিস্ময়।

নমুনা দেখতে পারেন – https://youtu.be/DMD3YupiuU4

পেশায় ইনি ছিলেন এক আয়া। ভাঙা সংসারের সন্তান, কষ্টের জীবন, স্বশিক্ষিত কিংবদন্তি শিল্পী। অনেকে ওঁকে ফটোগ্রাফির ভ্যান গখ বলেছেন। জীবদ্দশায় মাইয়েরের ছবিগুলি অজানা এবং অপ্রকাশিত ছিল। negativeগুলির বেশিরভাগ কখনও মুদ্রিত হয়নি। শিকাগোর এক সংগ্রাহক, জন মালোফ ২০০৭ সালে কিছু ফটো কাকতলীয়ভাবে খুঁজে পান। পরে অন্য দু’জন সংগ্রাহক, প্রায় একই সময়ে তার বাক্সে এবং স্যুটকেসগুলিতে ওঁর কয়েকটি প্রিন্ট এবং আরো negative খুঁজে পেয়েছিলেন। মাইয়ারের ছবিগুলি প্রথম ২০০৭ সালের জুলাই মাসে ইন্টারনেটে প্রকাশিত হয়েছিল। বাকিটা ইতিহাস।

কাল লকডাউন। হাতে অবসর থাকলে দেখে ফেলুন ওঁর ওপর একটি জমজমাট তথ্যচিত্র – “ফাইন্ডিং ভিভিয়ান মাইয়ার” (২০১৩)।

এই সিনেমাটি মনোনীত হয়েছিল সেরা ডকুমেন্টরি ফিচার ফিল্মের জন্য আকাডেমি পুরস্কারে ( ৮৭তম একাডেমি পুরষ্কার)।

আমার বাকি লেখা ও তোলা ছবি দেখতে পারেন – http://debanjanbagchi.com

দেবাঞ্জন বাগচী।

Leave a Reply

Solve : *
28 + 6 =